শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০১:২১ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
বাইশারীতে বর্তমান ও সাবেক চেয়ারম্যান অনুসারীদের হামলার অভিযোগ উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব নির্বাচনে বিভিন্ন পদে ১৮জনের মনোনয়ন সংগ্রহ উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাব’র নির্বাচন : জেলাজুড়ে জল্পনা-কল্পনা উখিয়ার লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অপরাধ জগৎ নিয়ন্ত্রণে যারা ক্যাম্পে কথিত আরসা সদস্যকে গুলি করে হত্যা বৈশ্বিক তহবিল ঘাটতির সাথে খাপ খাইয়ে নিতে সমন্বিত পরিকল্পনা অতীব জরুরী উখিয়ার পূর্বরত্না থেকে গভীর রাতে সংঘবদ্ধ ১৮ রোহিঙ্গা আটক প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে ফুয়াদ আল-খতীব হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বক্তব্য উখিয়া কলেজের গভর্ণিং বডির শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচন সম্পন্ন: অধ্যাপক তহিদ ও শাহআলম নির্বাচিত রোহিঙ্গা হেড মাঝি খুনের ঘটনায় ৩জন আসামীকে গ্রেফতার করেছে এপিবিএন-৮

কক্সবাজারে জঙ্গি সম্পৃক্ত এনজিওর ৩০০ গরু উদ্ধার 

ডেস্ক নিউজ:: / ২৬৮ বার
আপডেট সোমবার, ৩ আগস্ট, ২০২০, ১:৪৯ পূর্বাহ্ন

এদিকে ঈদের পরের দিন রবিবার কক্সবাজার শহরের উত্তর নুনিয়াছড়া এলাকা থেকে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা এক অভিযান চালিয়ে ৩০০টি গরু উদ্ধার করেছে। এসব গরুর মধ্যে ২০০ জবাই করা গরু এবং অপর ১০০ গরু রয়েছে জীবিত। কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) মো. শাজাহান আলী কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন, কিছু এনজিও জেলা প্রশাসনের অনুমতি না নিয়ে গোপনে রোহিঙ্গা শিবিরসহ নানা স্থানে গরু বিলি করছে।
অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আরো জানান, গোপনে গরু বিলি বন্টন কাজে সবচেয়ে বেশি জড়িত রয়েছে জঙ্গি সম্পৃক্ততায় জড়িত বলে যেসব এনজিও’র বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে সেইসব।

এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, কক্সবাজার শহরের উত্তর নুনিয়াছড়া এলাকায় তাঁর নেতৃত্বে গিয়ে রবিবার দুপুরে এক অভিযান চালিয়ে জবাই করা গরুর মাংসসহ ৩০০ গরু উদ্ধার করেন। এসব স্থানীয় জনপ্রতিনিধির কাছে জিম্মা দিয়ে যথারীতি দরিদ্রদের মাঝে বিতরণের ব্যবস্থা করা হয়।

তুরস্কভিত্তিক ‘দিয়েনাথ ফাউন্ডেশন’ নামের একটি এনজিও জেলা প্রশাসনের অগোচরে এসব গোপনে বন্টন করছিল।
অপরদিকে কক্সবাজারের রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের তেচ্ছিপুল নামক এলাকার একটি মসজিদের এলাকায় বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সম্পৃক্ত এনজিও আল-মারকাজুল শতাধিক গরু কিনে সেখানেই গোপনে জবাই করে। পরে গাড়িতে করে রোহিঙ্গা শিবিরে বিলি করা হয়। রোহিঙ্গা শিবিরে এরকম আরো অনেক জঙ্গি সম্পৃক্ত নিষিদ্ধ এনজিও গোপনে এসব কাজে জড়িত রয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন, বালুখালী রোহিঙ্গা শিবির ও কুতুপালং শিবির এলাকায় এরকমের খবর পেয়ে সেখানে অভিযান চালানো হয়। কিন্তু অভিযান চালাতে গেলেই সবাই লুকিয়ে পড়ে। এসব বিষয়ে কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন জানিয়েছেন, বিষয়টি তাঁর গোচরিভ’ত হয়েছে। এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সুত্র: কালেরকন্ঠ


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: