বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে জাতিসংঘ কাজ করছে : মিশেল ব্যাচলেট নরমাল ডেলিভারিতে অতিরিক্ত টাকা আদায়, জেনারেল হাসপাতালকে ৩২ হাজার টাকা জরিমানা দুই রোহিঙ্গা মাঝি হত্যায় জড়িত ৩জনকে আটক করেছে এপিবিএন-৮ উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের গুলিতে দুই মাঝি নিহত রামু সেনানিবাসে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ভলিবল প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান সম্পন্ন নাইক্ষ্যংছড়িতে পুলিশ সুপার জেরিন আখতারের সাথে সুশীল সমাজের মতবিনিময়  উখিয়ায় ডেঙ্গু মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম “স্টপ ডেঙ্গু” উখিয়া অনলাইন প্রেসক্লাবের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত উখিয়ায় ডেইরী খামারিদের মাঝে ভিটামিন ও কৃমির ঔষধ বিতরণ উখিয়ায় আবাসিক হোটেল থেকে রোহিঙ্গা তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

কালের আবর্তে হারিয়ে যাচ্ছে সভ্য ছাত্র ছাত্রী

কলামঃ / ৩৫৮ বার
আপডেট বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১, ১২:৫৪ অপরাহ্ন

জীবনের চলার গতি এবং কালের পরির্বতন সৃষ্টিগত একটি স্বভাব, দিন যত যাবে মানুষের ততটা পরির্বতন হবে এটাই স্বাভাবিক।

সৃষ্টির প্রকৃতিতে সকল কিছুর পরির্বতন আসুক, মানুষের মধ্যে বিরাজ করুক সঠিক মনুষ্যত্ব এটাই সকলের কামনা। কিন্তু বাস্তবে মানব সভ্যতার নামধারী মানুষ গুলো দ্বারা কলুষিত হচ্ছে সমাজ।

বাস্তবতার যে প্রতি ফলন আধুনিক যুগে তা মানুষের কল্পনা প্রসূত ছিল। যেটা কখনো মানুষের কামনা ছিলনা, সেটাই আজকে আমাদের সাথে ঘটতেছে? তাহলে কি হবে আমাদের বর্তমান এবং আগামির প্রজন্মের পরিস্থিতি।

যেখানে আমরা আমাদের কোমলতি শিক্ষার্থীদের মানুষে পরিণত করতে পারতেছি না? বর্তমানে এমন একটা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে খুব ভাবিয়ে তুলতেছে আমাদের আগের প্রজন্মের সভ্য মানব গুলোকে কে। আজকে আমরা সভ্য সমাজে বসবাস করার নামে দিন দিন ভরে যাচ্ছে নিত্য বেহায়াপনায়।

সমাজে ভাল কোন কিছুর আবির্ভাব আমাদের মাঝে সূত্রপাত হচ্ছে না।
আমরা দিন দিন ব্যার্থ হচ্ছি আমাদের পরর্বতী প্রজন্ম কে ভাল কোন শিক্ষা সুযোগ করে দেওয়া থেকে। কিভাবেই বা সফল হবো যদি শিক্ষা ব্যবস্থায় দেওয়া থাকে অনৈতিক শিক্ষা, উঠে গেছে বেত্রাঘাতের শাসন, ঘটতেছে সমাজিক অবক্ষয়।

বর্তমান ছাত্রছাত্রীদের আচার আচরণ দেখে অনেক সময় শিক্ষকও লজ্জা পায়। এসব দেখে সচেতন মহল মনে করে অভিভাবকহীন জীবন পরিচালনা তাদের। আসলে কি তাঁরা আগামি দিনের ভবিষ্যত নাকি কাল সাপ?

যদি তাঁরা নীতি নৈতিকতার শিক্ষা না পায়, তাহলে সেই শিক্ষা দ্বারা জাতি কি রকম উপকৃত হতে পারে? এভাবে পরিস্থিতি এবং সময় অতিবাহিত হলে আমরাতো এক সময় ভয়ঙ্কর জাতিতে পরিণত হবো? কেন আমরা আমাদের কোমলমতি ভাইবোনদের মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে অক্ষম হচ্ছি?

আমাদের সমাজকে এবং রাষ্ট্রকে বদলে দিতে কর্মমুখী শিক্ষা এবং সুশিক্ষার বিকল্প নেই। বর্তমানে শিক্ষা আছে কিন্তু সুশিক্ষা নেই। যার কারণে শিক্ষার্থীদের নীতির অবক্ষয় হচ্ছে দিন দিন, বদলে যাচ্ছে বাস্তবিক চিত্র।

এভাবে চলতে থাকলে আমরা আমাদের সমাজ এবং রাষ্ট্রকে ভালো মানুষ উপহার দেওয়া বদৌলতে আমরা পাবো ভয়ঙ্কর জাতি। সুতারাং রাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি শিক্ষা ব্যবস্থা কে গুরুত্ব দেওয়া হউক।

সর্বপোরীঃ
শিক্ষা হউক আর্দশ এবং নীতি মূল্যবোধের শিক্ষা।
রাষ্ট্র হউক সঠিক শিক্ষা বাস্তবায়নকারী রাষ্ট্র।
ছাত্রছাত্রী হউক দেশ প্রেমি এবং মানবতা প্রেমী।
মানবতা হউক সুশিক্ষায় শিক্ষিত উদ্যমী।
নীতি হউক সঠিক আর্দশ নীতি।

লেখকঃ
দেলোয়ার হোছাইন (বাপ্পী)
বি,এ এম,এ (এলএল,বি অধ্যায়নরত)


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: