শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০৩:২০ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
ওবায়দুল কাদেরকে ‘রাজাকার ফ্যামিলির লোক’ বলে কটুক্তি করলেন এমপি একরাম নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে বন্দুকযুদ্ধে ইয়াবা কারবারি নিহত ফেব্রুয়ারির দ্বিতীয় সপ্তাহে খুলতে পারে শিক্ষাঙ্গন দুদকের মামলায় কারাগারে টেকনাফের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান জাফর সেন্টমার্টিন প্রবাল দ্বীপ ভ্রমণে পুলিশের মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ ভাসানচরে ঈদের আনন্দ, মেজবানের আয়োজন হাটহাজারীতে রেলওয়ের সম্পত্তি উদ্ধার করলেন উপজেলা প্রশাসন বান্দরবানে প্রথম দফায় ৩৩৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর দেয়া হচ্ছে ইসলামাবাদে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন নিহত আহত-১ মুজিববর্ষে জমিসহ ঘর পাচ্ছেন ৮৬৫ গৃহহীন, শনিবার হস্তান্তর করবেন প্রধানমন্ত্রী

নির্যাতিত সাংবাদিক বাধনের স্ত্রীর খোলা চিঠি

ডেস্ক নিউজ:: / ৯৪ বার
আপডেট বৃহস্পতিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ৭:৪৯ পূর্বাহ্ন

সম্প্রতি নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয়েছেন বাংলা টিভির রংপুর প্রতিনিধি রাফাত হোসেন বাঁধন ও তার পিতা সাবেক সেনাসদস্য আফজাল হোসেন।

পরে হামলাকারী সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রধান ও রংপুর সিটি করপোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ফজলে এলাহি ফুলুরবিরুদ্ধে একটি মানলা দায়ের করলে তাকে সহ অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতার না করে উল্টো হামলাকারী কাউন্সিলরের করা মিথ্যা মামলায় জামিন নিতে গেলে তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে পাঠিয়েছে বিচারক।

তাকে কারাগারে পাঠানোর পর আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে সাংবাদিক বাঁধনের পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে গুন্ডাবাহিনী নিয়ে এলাকায় মহড়া দিচ্ছেন অভিযুক্ত কাউন্সিলর ফুলু।এদিকে বাঁধনের নিঃশর্ত মুক্তি ও অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে একটি চিঠি লিখেছেন তারই স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার বন্যা।

তার লেখা চিঠিটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো: মাননীয় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি।আমি বাংলা টিভির রংপুর প্রতিনিধি রাফাত হোসেন বাঁধনের স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার বন্যা বলছি। আমার শ্বশুর সেনাবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা আফজাল হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাধন ট্রেডার্স থেকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকার বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী বিভিন্ন সময়ে বাকিতে ক্রয় করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফজলে এলাহী ফুলু। বিভিন্ন সময়ে আমার শ্বশুর তার কাছে টাকা চাইতে গেলে তিনি টালবাহনা করেন। গত ৮ আগস্ট আমার শ্বশুর বাকি টাকা চাইতে গেলে তার ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় কাউন্সিলর ফুলু ও তারপুত্র শাওন, সজল, আকিফুলসহ একদল সন্ত্রাসী। বিষয়টি জানতে পেরে আমার স্বামী বাঁধন অফিস থেকে দ্রুত আমাদের বার করে কারাগারে পাঠিয়েছে বিচারক।তাকে কারাগারে পাঠানোর পর আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে সাংবাদিক বাঁধনের পরিবারকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে গুন্ডাবাহিনী নিয়ে এলাকায় মহড়া দিচ্ছেন অভিযুক্ত কাউন্সিলর ফুলু।

এদিকে বাঁধনের নিঃশর্ত মুক্তি ও অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে একটি চিঠি লিখেছেন তারই স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার বন্য। তার লেখা চিঠিটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো:মাননীয় রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি।আমি বাংলা টিভির রংপুর প্রতিনিধি রাফাত হোসেন বাঁধনের স্ত্রী ইয়াসমিন আক্তার বন্যা বলছি। আমার শ্বশুর সেনাবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা আফজাল হোসেনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বাধন ট্রেডার্স থেকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকার বিভিন্ন পণ্যসামগ্রী বিভিন্ন সময়ে বাকিতে ক্রয় করেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ১৩ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফজলে এলাহী ফুলু। বিভিন্ন সময়ে আমার শ্বশুর তার কাছে টাকা চাইতে গেলে তিনি টালবাহনা করেন। গত ৮ আগস্ট আমার শ্বশুর বাকি টাকা চাইতে গেলে তার ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় কাউন্সিলর ফুলু ও তারপুত্র শাওন, সজল, আকিফুলসহ একদল সন্ত্রাসী। বিষয়টি জানতে পেরে আমার স্বামী বাঁধন অফিস থেকে দ্রুত আমাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে আসলে কাউন্সিলর ফুলু, আকিফুল, শাওন, সজলসহ অন্যান্যরা আমার স্বামীকে হত্যার উদ্দেশ্যে মাথায় আঘাত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় পুলিশের উপস্থিতিতে তাকে তার সহকর্মীরা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করান। আমার স্বামী এবং শশুরের ওপর হামলার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ আমি আপনার কাছে এই আইডির মাধ্যমে নিবেদন করলাম। যারা আমার স্বামীকে মারলেন সেই কাউন্সিলর ফুলুর মিথ্যা মামলাটি কিভাবে তদন্ত ছাড়াই পুলিশ রেকর্ড করলো, এটি একজন নারী হিসেবে আমার কোনোভাবেই বোধগম্য নয়। মামলার নথির সাথে কাউন্সিলর ফুলু তার সন্ত্রাসী বাহিনীর কয়েকজনের  মাথায় মুরগির রক্ত দিয়ে ছবি সংযুক্ত করে দিল। সেই মিথ্যা মামলায় আমার স্বামী এখন অন্ধকার কারাগারে।
মাননীয় পুলিশ কমিশনার মহোদয়, আমি আপনার কাছে বিনয়ের সাথে জানতে চাই। একটি মিথ্যে মামলায় যদি আমার স্বামী অন্ধকার কারাগারে থাকে। তাহলে কি কারণে এখনও হামলাকারী কাউন্সিলর ফুলু এবং তার অন্যান্য সহযোগীরা বুক উঁচিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আপনি দয়া করে এই সিসিটিভির ভিডিও ফুটেজটি কি একটু দেখার সময় পাবেন।
আমি রংপুরের সকল সাংবাদিক, সুধীমহল, নগরবাসী, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ সারা দেশবাসীর কাছে এই দাবি জানাচ্ছি, যে কাউন্সিলর ফুলু চেক জালিয়াতি মামলার ওয়ারেন্ট ভুক্ত আসামী। সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে তিনি এই ভয়াবহ চেক জালিয়াতির মামলাটির তথ্য গোপন করে অংশগ্রহণ করেছিলেন এবং আমার স্বামী বাঁধনের মামলার প্রধান আসামি। তিনি কি আইনের ঊর্ধ্বে। তিনি এখনও প্রকাশ্যে অফিস করছেন। ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আমাদের কে মেরে ফেলার হুমকি দিচ্ছেন।

মাননীয় পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের কাছে বিনয়ের সাথে জানতে চাই, যদি একটি নির্লজ্জ মিথ্যা মামলায় আমার স্বামী বাঁধন তার আড়াই বছরের শিশু সন্তানকে রেখে অন্ধকার কারাগারে রাতযাপন করে।

ইতি
ইয়াসমিন রাফাত বন্যা


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: