শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
শিরোনাম :
উখিয়া র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ ১ মাদক কারবারী আটক অনলাইন এক্টিভিটিসদের সাথে কোস্ট ট্রাস্টের মতবিনিময় উখিয়ার ডেইলপাড়া হোছাইন বিন আলী (রাঃ)মাদ্রাসার অভিভাবক সম্মেলন সম্পন্ন নাইক্ষ্যংছড়িতে ৪২ তম জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মেলা-২০ইং’র উদ্বোধন বেতন বৈষম্য: ২৬ নভেম্বর থেকে কর্মবিরতিতে নাইক্ষ্যংছড়ির স্বাস্থ্য সহকারিরা শোকের সাগরে ভাসছে ফুটবল বিশ্ব করোনায় একদিনেই ১২ হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি ফুটবলার ম্যারাডোনা আর নেই সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তির চিকিৎসার জন্য গফুর চেয়ারম্যানের চেক হস্তান্তর ১৫ দিন পর ৯ জেলেকে হস্তান্তর করল বিজিপি

উখিয়ার চাউখালী এলাকায় রাস্তা নির্মাণের দাবি জানিয়েছে চাকমা-তঞ্চঙ্গ্যা সম্প্রদায়

নিজস্ব প্রতিবেদক: / ৯৪ বার
আপডেট শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ০৩:৫১ পূর্বাহ্ন

উখিয়া উপজেলার ১নং জালিয়াপালং ইউনিয়নের চাউখালি গ্রামে সরকারী রাস্তার দাবীতে আজ সমাবেশ করেছে স্থানীয় উপজাতী চাকমা ও তঞ্চঙ্গ্যা সম্প্রদায়।

জানা যায় উখিয়ার মনখালী চাকমা পাড়া এলজিইডি সড়ক থেকে প্রায় ৬-৭ কিলোমিটার ভেতরে চাওখালী নতুন কেজারি পাড়া। যুগের পর যুগ চলে গেলেও একটি রাস্তার অভাবে এই পাড়ার বাসিন্দাদের কষ্টের যেমন শেষ নেই তেমনি তাদের দ্বারা চাষের উৎপাদিত ফসল ও বিভিন্ন জিনিস পত্র বাজারে বিক্রি করতে আনতেও দূর্ভোগের শেষ নেই। পণ্য গুলো নিজ কাধেঁ নিয়ে মাইলের পর মাইল হেটে তারা এলজিইডি সড়কে আসে। এই যেন আধুনিক যুগে অবাক হওয়ার কান্ড।

এই অজপাড়া গ্রামে ১২০-১৫০ পরিবারে প্রায় হাজার দেড়েক মানুষের বসবাস। নেই কোনো একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বাবা মায়েরা তাদের কোমলমতি শিশুদের ৬-৭ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে এলজিইডি সড়কের পাশে অবস্থিত ছেপটখালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও মনখালী চাকমা পাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পাঠায়। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাদের এই জীবন সংগ্রাম শেষে অনেক শিক্ষার্থী আজ হাইস্কুল ও কলেজ জীবন পেরিয়ে এখন দেশের অনেক নাম করা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ে। এই কথা বলতেই এই পাড়ার মানুষ অনেক আবেকপ্লুত হয়ে উঠে।
আবার অনেক শিক্ষিত লোক ছোট বড় পদে সরকারী চাকরি করে। তাদের প্রচেষ্টায় কোনো রকম তারা শিক্ষার আলো গ্রহন করলেও অর্থ এবং জনপ্রতিনিধিদের আন্তরিক পরিকল্পনা ও একটি রাস্তার অভাবে তাদের জীবন এখনো সভ্যতার বাইরে অন্ধকারে বলে তারা মনে করেন। তবে তারা স্বপ্ন দেখে একদিন তাদের এই কষ্ট দুর হবে। কেউ সহযোগিতা বা উদ্যোগ গ্রহন করলে প্রয়োজনে এই গ্রামের লোকেরা সেচ্ছায় শ্রম দিবে এমন কথাও তারা বলেন।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা দেখা গেছে এই পাড়ার অবস্তা যেন জরাজীর্ণ কিংবা রোগগ্রস্ত এই মানুষ মত।নেই কোনো যাতায়াত সুবিধা

ঐ গ্রামের আদিবাসী সম্প্রদায়ের লোকজন বলেন আমাদের বড় একটি ভয় থাকে নারী, শিশু, বৃদ্ধ, ও বিভিন্ন বয়সের কোনো লোক হঠাৎ অসুস্থ হলে হাসপাতাল বা ডাক্তার দেখাতে শুধু এলজিইডি সড়কে আসতে তাদের তিন চার ঘন্টা লেগে যাবে। সে সময়ে কোনো ধরণের দূর্ঘটনা ঘটলে তাদের কিছু করার থাকবেনা। এই যেন যুগের পর যুগ তাদের অসহায়ত্ব। বর্তমানে রোহিঙ্গা সংকটে উখিয়া–টেকনাফ বিশাল ক্ষতিগ্রস্ত। আর স্থানীয়দের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে অনেক এনজিও সংস্থা কাজ করছে। সে সুবাধে যদি সুযোগ থাকে কোনো এনজিওকে বলে হলেও সরকার বা জনপ্রতিনিধিরা যেন এই গ্রামে যাতায়াতের জন্য একটি রাস্তার ব্যবস্থা করে দেয় এমন দাবীও তাদের। অন্যদিকে একটি রাস্তার জন্য এই গ্রামের মানুষেরা সরকারী বাজেটের জন্যও চেয়ে থাকেন।

এ ব্যাপারে স্থানীয় সমাজ সেবক ও উখিয়ার উপজেলা যুবলীগ নেতা কামাল হোসেন দূর্জয় বলেন আমরা দীর্ঘকাল ধরে দেখতেছি একটি রাস্তার অভাবে এই গ্রামের মানুষেরা অনেক কষ্ট পাচ্ছে। তাই সরকার যেন এই গ্রামে যাতায়াত করতে একটি রাস্তা তৈরি করে দেয় তার দাবী জানাচ্ছি। উক্ত গ্রামে একমাত্র বিজিবি সদস্য বাশিমং চাকমা বিপন জানান দীর্ঘদিন ধরে সবার কাছে সহযোগীতা চাওয়া হলে ও কোন সহযোগিতা পাওয়া যায়নি।বরং আমাদের আশ্বাসের বাণী শুনিয়ে চলে যায় সবাই।তাই এলজিইডি অর্থায়নে একটি রাস্তা হলে তাহলে আমরা উপকৃত হতাম।

অনেক দিন আগে নিজের উদ্যোগে এবং গ্রামবাসী সহযোগিতায় রাস্তাটা কোনমতে পায়ে হেটেঁ যাওয়া ব্যবস্থার করে দেওয়া হলে ও বর্তমান রাস্তাটা চলচলে খুব কষ্টসাধ্য হয়ে গেছে।এমন অবস্থায় সবার সহযোগিতা কামনা করছি। অন্যদিকে উখিয়া জালিয়াপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুরুল আমিন জানান চাওখালী নতুন কেজারি পাড়াটি পাহাড়ের বেশি ভেতরে হওয়াতে তাদের যাতায়াতের জন্য একটি টেকসই রাস্তা তৈরিতে অনেক কঠিন হচ্ছে। তারপরও আমরা চেষ্টা চালাচ্ছি কি ভাবে এই গ্রামের জন্য একটি রাস্তা তৈরি করা যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: