মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:২২ অপরাহ্ন

বান্দরবানে অবশেষে খুলছে সব পর্যটন কেন্দ্র ও হোটেল-মোটেল

বান্দরবান প্রতিনিধি: / ৬০ বার
আপডেট মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৩:২২ অপরাহ্ন

করোনার কারণে দীর্ঘ প্রায় পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে কাল শুক্রবার (২১আগস্ট) থেকে বান্দরবানের সবগুলো দর্শনীয় পর্যটন কেন্দ্র ও আবাসিক হোটেল-মোটেল, রির্সোট খুলে দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে জেলা প্রশাসন।

আজ বৃহস্পতিবার (২০ আগস্ট) সকালে জেলা প্রশাসনে এক আলোচনা সভা পর্যটন কেন্দ্রগুলো খুলে দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শামীম হােসেন।

বান্দরবানে দর্শনীয় পর্যটন কেন্দ্র বন্ধ থাকায় এ খাতে প্রায় হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন পর্যটন সাথে সংশ্লিষ্টরা।

জানা গেছে, মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে নাজেহাল সারা বিশ্ব। এই করোনাভাইরাসের সংক্রামণ বিরূপ প্রভাব পড়েছে পাহাড়ের সর্বত্র । তাই বান্দরবানে করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে মার্চের মাঝামাঝি থেকে প্রায় পাঁচ মাস ধরে পর্যটনকেন্দ্র ও পর্যটন সাথে সংশ্লিষ্ট সব ধরণে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। এতে ব্যাপক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে পাহাড়ী পর্যটন জেলা বান্দরবানের পর্যটন সংশ্লিষ্টরা। তবে পাশ্ববর্তী জেলা রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়ির পর্যটন শিল্পের সংশ্লিষ্ট সব ধরণে খুলে দেয়া পর এবার বান্দরবান পর্যটন স্পটগুলো খুলে দেওয়ার সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এতে পর্যটন খুলে দেয়ার সংবাদে কিছুটা হলেও স্বস্তি ফিরেছে ব্যবসায়ীদের মাঝে।
সবুজ অরণ্যে ঘেরা প্রাকৃতির অপার সৌন্দর্যের জেলা বান্দরবান। যেখানে রয়েছে মেঘলা, নীলাচল, নীলগিরি, স্বর্ণজাদি, রামজাদি, শৈল প্রপাত, বন প্রপাত, শীলবাদ্ধা ঝর্ণা, দেবতাকুম, চিম্বুক, শুভ্রনীলা, থানচির রেমাক্রি, নাফাকুম, রুমার বগালেক, কেউক্রাডং, লামার মিরিঞ্জা, আলীকদমের আলীর সুড়ঙ্গসহ বিভিন্ন পর্যটন স্পট। পর্যটন স্পটগুলাে খুলে দেওয়ার পর স্পটগুলােতে বাড়বে পর্যটকের সংখ্যা, এমন মত সংশ্লিষ্টদের।

এ বিষয়ে আঞ্চলিক পরিষদ সদস্য ও পর্যটন ব্যবসায়ী কাজল কান্তি দাশ বলেন, দীর্ঘ পাঁচ মাস ধরে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান বন্ধ ছিল। এই খাত থেকে কোনো আয় ছাড়া কর্মচারীদের বেতন দিতে হচ্ছে। এই ক্ষতি আগামী কয়েক বছরেও পূরণ করা সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন।

আবাসিক হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম জানান, এই জেলায় প্রায় ৬০টি হােটেল-মােটেল রয়েছে। আর পর্যটকবাহী যান রয়েছে প্রায় ৪ শতাধিক। এই পর্যটন শিল্পের সাথে জড়িত জেলার প্রায় ২০ হাজার মানুষ।
তিনি আরও বলেন, জেলায় কর্মসংস্থান ও আয়ের বড় খাত হচ্ছে পর্যটন। পর্যটন খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তে আমরা খুশি।

এই ব্যাপারে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শামীম হােসেন বলেন, কাল শুক্রবার (২১ আগস্ট) থেকে বান্দরবানের সব পর্যটনকেন্দ্রগুলো খুলে দেয়া হবে। তবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ব্যাপারে কড়া নজরদারি থাকবে, মাস্ক ছাড়া কাউকে পর্যটন কেন্দ্র ঢুকতে দেওয়া হবে না।

প্রসঙ্গত, করােনা সংক্রামন প্রতিরােধে গত ১৮মার্চ থেকে জেলার সব পর্যটন কেন্দ্র অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করে দেয় জেলা প্রশাসন


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: