মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

ভুল বুঝে দুুরত্বের অবসান!

ইমাম খাইর:: / ১৭৬ বার
আপডেট মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

দূরত্বের পারদ গলে গেল লামা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুর-এ-জান্নাত রুমী এবং তাঁর স্বামী বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার ওমর ফারুক রুবেলের।

বেশ কয়েকদিন ধরে তাদের মধ্যে চলমান পারিবারিক ভুল বুঝাবুঝির অবসান হয়েছে।

বান্দরবানের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম এর মধ্যস্থতায় এই সমস্যার প্রাথমিক সমাধান হয়েছে বলে জানা গেছে।

ওমর ফারুক রুবেল নিজেই এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

জানতে চাইলে তিনি বলেন, ডিসি স্যার আমরা দুইজনকে ডেকে বসেন। তিনি আমাদের অনেকভাবে বুঝান। দীর্ঘক্ষণ বৈঠক শেষে আমরা সমঝোতায় আসতে সম্মত হয়েছি।

তালাকের বিষয়ে কি হবে জানতে চাইলে বলেন, রুমির তালাকনামাটি আমার হস্তগত হয় নি। এটি শরীয়তের মানদন্ডের আলোকে সিদ্ধান্ত হবে।

বান্দরবানের লামা’র ইউএনও নুর-এ-জান্নাত রুমী এবং তাঁর স্বামী বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার ওমর ফারুক রুবেলকে গত ১৩ জুলাই সন্ধ্যায় বান্দরবান জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ দাউদুল ইসলাম তাঁর সরকারি বাংলোতে ডেকে নিয়ে দীর্ঘক্ষণ তাঁদেরকে বুঝান। পরে উভয়ে ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে পুণরায় সংসার করতে প্রাথমিকভাবে সম্মত হন।

লামা’র ইউএনও নুর-এ-জান্নাত রুমী বিসিএস (প্রশাসন) ৩০ তম ব্যাচের একজন কর্মকর্তা। অপরদিকে, বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী রেজিস্ট্রার ওমর ফারুক রুবেল কক্সবাজার শহরের প্রভাতী স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক বুলবুল এ জান্নাত এবং জাফর আলম দিদার এর পুত্র। এ দু’জনের মাঝে পারিবারিক বিষয় নিয়ে চরম ভুল বুঝাবুঝি চলে গত এক সপ্তাহ ধরে। যা গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত হয় ব্যাপকভাবে।
এরমাঝে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় গত ১২ জুন লামা’র ইউএনও নুর-এ-জান্নাত রুমীকে লামা’র ইউএনও এর পদ থেকে প্রত্যাহার করে রংপুর বিভাগের যেকোন উপজেলার ইউএনও হিসাবে পদায়ন করার জন্য তাঁর চাকুরী রংপুর বিভাগীয় কমিশনারের কাছে ন্যাস্ত করা হয়। রুমী ও রুবেল দম্পতির নাসিউল আলম রাহিব নামক তিন বছরের ফুটফুটে বুকজুড়ানো এক পুত্র সন্তান রয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো সংবাদ
এক ক্লিকে বিভাগের খবর
%d bloggers like this:
%d bloggers like this: